শহকর্মা

20190807_111120

 

কর্মসূত্রের যোগফলগুলোকে মানলে আমি আপনার মা হই, আর না মানলে পত্নী। বিচার্য আপনার। কোন সুখকে আপনি নেবেন। কোনসুখের দায়ভাগা ভাগ বা ভার্বার্য্য আপনার জন্য জরুরী। আমি রোজ রাতে যেমন জেগে রই আজও থাকবো। অপেক্ষা আপনার জন্য, স্বামী বা পুত্রের।
খু্ব ধীরে ধীরে নিজেকে নামিয়ে শহকর্মা এই কথাগুলো বললেন রাত কে। রাত, নগরীমোহনের নতুন যুবরাজ, বা ভাবী যুবাপুত্রী। কাল রাতের ঘটনায়, রাত নিজেই একটু বিমূঢ়, তিনি এখনও জানেন না, কতটা ঠিক বা ভুল তিনি শুনেছিলেন বা জানেন। শহকর্মাকে জিজ্ঞেস করতে তার উত্তর তিনি জানলেন এখন, পেলেন

রাত। অশ্বারোগী নগরীর তীরে ভূমা নদীর জলে তার নিজের ছায়া, ঘোড়ার অস্পষ্ট পদযুগল দেখতে দেখতে নিজেকে ভেবে চলেন তিনি। তিনি কে আসলে? পুত্র না পুরুষ? শহকর্মাই বা কে! কোন নগরীর প্রান্তরে এই জনমানব! একা মাঠের ক্ষেত নিজের হাতে চষতে চষতে নিজেরই জন্মলগ্ন, পথভার! নিজের পথের পাশেই দাঁড়িয়ে দেখছেন। চাঁদটা অদ্ভুত ঝাপসা আজ। সে ও কি নারী না পুরুষ? চাঁদ বা তার আলো তার দেহের যূথাভার সবই রমণতুল্যনীয়, কিন্তু তিনি জানেন রাত আসলে কন্যা আর চাঁদ তার পুরুষ! দুজনে বক্ষক্ষেত্রে, একে অন্যের নগর উন্মোচন। দেহখানি সুদৃঢ় ভারে পাতা। জন্ম কক্ষের জন্ম লক্ষ্যের। নিজের জন্ম, নিজ জন্ম তার নিজের।

ঘোড়ার পিঠে নিজেকে চাপিয়ে নগরীর উদ্দেশ্য রওনা দেন রাত। শহকর্মা অপেক্ষায় তাঁর। তিনি নিজেও

অহনা সরকার

#নভেম্বর

২০১৯

উচ্চারণ View All →

আমাদের কথার

1 Comment এখানে আপনার মন্তব্য রেখে যান

মন্তব্য করুন

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out /  পরিবর্তন )

Google photo

You are commenting using your Google account. Log Out /  পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out /  পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out /  পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: